Header Ads

EASY SOCIAL MEDIA EXCHANGE & EARN MONEY WITH EARNMINES.COM

Sura Al- Mulok (The Sovereigmty)

সূরাঃ আল-মুল্‌ক (৬৭ নং )
       Sura:The Sovereignty (67 No.)
  মক্কায় অবতীর্ণ পারাঃ ২৯ রুকূঃ ২ আয়াতঃ ৩০
    Meccan Juz: 29 Rukkhu: 2 Verses: 30
© All Right Reserved by Incredible Archives


بِسْمِ اللَّـهِ الرَّحْمَـٰنِ الرَّحِيمِ
(পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহের নামে শুরু )
In the name of Allah, Most Gracious, Most Merciful.
**************************************************************
تَبَارَكَ الَّذِي بِيَدِهِ الْمُلْكُ وَهُوَ عَلَىٰ كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ ﴿١
 (পুণ্যময় তিনি, যার হাতে রাজত্ব। তিনি সবকিছুর ওপর সর্বশক্তিমান )
1. Blessed be He in Whose hands is Dominion; and He over all things hath Power.
              
   الَّذِي خَلَقَ الْمَوْتَ وَالْحَيَاةَ لِيَبْلُوَكُمْ أَيُّكُمْ أَحْسَنُ عَمَلًا ۚ وَهُوَ الْعَزِيزُ الْغَفُورُ﴿٢﴾ 
               ( যিনি সৃষ্টি করেছেন মরণ ও জীবন, যাতে তোমাদেরকে পরীক্ষা করেন-কে তোমাদের মধ্য কর্মে শ্রেষ্ঠ ?  তিনি সর্বশাক্তিমান এবং ক্ষমাশীল |
            2. Who created death and life in order to try you to see who of you are best of deed.
     He is almighty & forgiving.

        الَّذِي خَلَقَ سَبْعَ سَمَاوَاتٍ طِبَاقًا ۖ مَّا تَرَىٰ فِي خَلْقِ الرَّحْمَـٰنِ مِن تَفَاوُتٍ ۖ فَارْجِعِ الْبَصَرَ هَلْ تَرَىٰ مِن فُطُورٍ ﴿٣﴾      
          ( তিনি সপ্ত  আকাশ  স্তরে  স্তরে সৃষ্টি  করেছেন । তুমি করুণাময় আল্লাহ্‌ তায়লার সৃষ্টিতে                কোনো অসঙ্গতি দেখতে পাবে না । আবার দৃষ্টি ফিরাও; কোনো ফাটল দেখতে পাও কি? )
    3. Who created the seven skies one above the other. Do you see any disproportion in the creations of Ar-Rahman? Turn your eyes again. Do you see any fissures?

                                                  ثُمَّ ارْجِعِ الْبَصَرَ كَرَّتَيْنِ يَنقَلِبْ إِلَيْكَ الْبَصَرُ خَاسِئًا وَهُوَ حَسِيرٌ ﴿٤﴾                          (অতঃপর তুমি বার বার তাকিয়ে দেখো তোমার দৃষ্টি ব্যর্থ ও পরিশ্রান্ত হয়ে তোমার দিকে ফিরে আসবে )
                       4.Turn your eyes again and again. Your gaze turns back dazed and tired.

         وَلَقَدْ زَيَّنَّا السَّمَاءَ الدُّنْيَا بِمَصَابِيحَ وَجَعَلْنَاهَا رُجُومًا لِّلشَّيَاطِينِ ۖ وَأَعْتَدْنَا لَهُمْ عَذَابَ السَّعِيرِ ﴿٥﴾    
     (আমি সর্বনিম্ন আকাশের প্রদীপমালা দ্বারা সুসজ্জিত করেছি আর তাদের বানিয়েছি শয়তানের জন্য ভাঁওতার বিষয়; আর আমরা তাদের জন্য প্রস্তুত রেখেছি জ্বলন্ত আগুনের শাস্তি )
      5. We have adorned the lowest sky with lamps, and made them missiles against the devils, for whom We have prepared a torment of most intense fire.

                       وَلِلَّذِينَ كَفَرُوا بِرَبِّهِمْ عَذَابُ جَهَنَّمَ ۖ وَبِئْسَ الْمَصِيرُ ﴿٦﴾  
  (আর যারা তাদের প্রভু কে অবিশ্বাস করে তাদের জন্য রেখেছি জাহান্নামের শাস্তি;  সেটা কতই  না  নিকৃষ্ট   স্থান)
     6. For those who believe not in their Lord there is the punishment of Hell; and what a wretched destination. 

                                       إِذَا أُلْقُوا فِيهَا سَمِعُوا لَهَا شَهِيقًا وَهِيَ تَفُورُ ﴿٧﴾                 
           (যখন তাদের সেখানে নিক্ষিপ্ত করবে তখন তারা তার থেকে বিকট গর্জন শুনতে পাবে ; আর তা লেলিহান শিখা ছড়াবে )
                      7. they are cast into it, they will hear it roar and raging

               تَكَادُ تَمَيَّزُ مِنَ الْغَيْظِ ۖ كُلَّمَا أُلْقِيَ فِيهَا فَوْجٌ سَأَلَهُمْ خَزَنَتُهَا أَلَمْ يَأْتِكُمْ نَذِيرٌ ﴿٨
    (যেন ক্রোধে ফেটে পড়ছে ; যখনি কোন একদলকে ওখানে নিক্ষেপ করা হবে , তখনি তাদের রক্ষীরা   তাদের জিজ্ঞেশ করবে  ---  তোমাদের কাছে কি কোন সতর্কবাণী আসেনি ? )
    8. As though it would burst with fury. Every time a crowd is thrown into it, its wardens will ask: "Did  no warner come to you?“

         قَالُوا بَلَىٰ قَدْ جَاءَنَا نَذِيرٌ فَكَذَّبْنَا وَقُلْنَا مَا نَزَّلَ اللَّـهُ مِن شَيْءٍ إِنْ أَنتُمْ إِلَّا فِي ضَلَالٍ كَبِيرٍ ﴿٩﴾ 
 ( তারা বলবেন হ্যাঁ --- আমাদের কাছে সতর্কবাণী ইতিমধ্য এসে গেছেন, আমরা কিন্তু অস্বীকার করেছিলাম ও  বলেছিলাম  -- “আল্লাহ্‌ কিন্তু কোন কিছু অবতারণ করেন নি, তোমরা রয়েছো বিরাট পথভ্রান্তিতে বৈ তো নও’’)
    9. And they will answer: "Surely; a warner came to us, but we denied him, and said: 'God did not send down anything; you are greatly deluded, in fact.'"
              
                        وَقَالُوا لَوْ كُنَّا نَسْمَعُ أَوْ نَعْقِلُ مَا كُنَّا فِي أَصْحَابِ السَّعِيرِ ﴿١٠
        (আর তারা বলবে -- আমরা যদি শুনতাম অথবা বুদ্ধি প্রয়োগ করতাম তাহলে আমরা জ্বলন্ত
           আগুনের  বাসিন্দাদের মধ্য হতাম না )
    10. They will say: "If we had listened and been wise, we would not have been among the inmates of Hell.’’

                          فَاعْتَرَفُوا بِذَنبِهِمْ فَسُحْقًا لِّأَصْحَابِ السَّعِيرِ ﴿١١
     ( সুতারাং তারা তাদের অপরাধ স্বীকার করবে ফলে জ্বলন্ত আগুনের বাসিন্দাদের জন্য  ‘দূর হ!’ )
    11. So will they confess their guilt. Deprived (of all joys) will be the inmates of Hell.

                       إِنَّ الَّذِينَ يَخْشَوْنَ رَبَّهُم بِالْغَيْبِ لَهُم مَّغْفِرَةٌ وَأَجْرٌ كَبِيرٌ ﴿١٢
    ( নিঃসন্দেহ যারা তাদের প্রভুকে গোপনে ভয় করে তাদের জন্য রয়েছে পরিত্রাণ ও বিরাট  প্রতিদান )
      12. For those who fear their Lord in secret is forgiveness and a great reward.

                                  وَأَسِرُّوا قَوْلَكُمْ أَوِ اجْهَرُوا بِهِ ۖ إِنَّهُ عَلِيمٌ بِذَاتِ الصُّدُورِ ﴿١٣﴾                   
         ( অথচ তোমাদের কথাবার্তা তোমারা গোপন  কর  অথবা তা প্রকাশই কর ; নিসন্দেহে তিনি বুকের ভিতরের বিষয় সম্বন্ধে  সর্বজ্ঞাতা )
        13. Whether you say a thing secretly or openly, He knows the innermost secrets of your hear

                                     أَلَا يَعْلَمُ مَنْ خَلَقَ وَهُوَ اللَّطِيفُ الْخَبِيرُ   ١٤﴾                       
      (যিনি সৃষ্টি করেছেন তিনি কি জানেন না ? তিনি গুপ্ত বিষয়ে জ্ঞাতা, পূর্ণ ওয়াকিফহাল)
   14. Can He who has created not know (His creation)? He is all-penetrating, all-aware.

    هُوَ الَّذِي جَعَلَ لَكُمُ الْأَرْضَ ذَلُولًا فَامْشُوا فِي مَنَاكِبِهَا وَكُلُوا مِن رِّزْقِهِ ۖ وَإِلَيْهِ النُّشُورُ﴿١٥
 ( তিনিই সেই জন যিনি তোমাদের জন্য এই পৃথিবী কে শান্ত করে দিয়েছেন, ফলে তারই তোমরা এর
  দিগদিগন্তে বিচরণ করছো এবং তাহার জীবিকা থেকে আহার করছো । আর তারই কাছে পুনরুথান)
15. It is He who made the earth subservient to you that you may travel all around it,
      and eat of things He has provided; and to Him will be your resurrection.
                     
                     أَأَمِنتُم مَّن فِي السَّمَاءِ أَن يَخْسِفَ بِكُمُ الْأَرْضَ فَإِذَا هِيَ تَمُورُ ﴿١٦
        ( কী! যিনি ঊর্ধ্বলোকে রয়েছেন তার কাছ থেকে কি তোমরা নিরাপত্তা গ্রহন করেছো, যে
        তিনি পৃথিবীকে দিয়ে তোমাদের গ্রাস করাবেন না যখন আলবৎ তা আন্দোলিত হবে)
    16. Are you so unafraid that He who is in Heaven will not open up the earth to swallow
          you, when it will begin to tremble?
     
           أَمْ أَمِنتُم مَّن فِي السَّمَاءِ أَن يُرْسِلَ عَلَيْكُمْ حَاصِبًا ۖفَسَتَعْلَمُونَ كَيْفَ نَذِيرِ ﴿١٧
 ( অথবা যিনি ঊর্ধ্বলোকে রয়েছেন তার কাছ থেকে কি তোমরা নিরাপত্তা গ্রহন করেছ পাছে তিনি তোমাদের উপর পাঠিয়ে দেন এক কুকংকরম ঘূর্ণিঝড় ? ফলে তোমরা শীঘ্রই জানতে পারবে কেমন ছিল আমার সতর্কবাণী!)
17. Or have you become so unafraid that He who is in Heaven will not send a violent wind to shower stones at you? Then you will know the import of My commination!

                          وَلَقَدْ كَذَّبَ الَّذِينَ مِن قَبْلِهِمْ فَكَيْفَ كَانَ نَكِيرِ ﴿١٨
         ( আর এদের আগে যারা ছিল তারাও প্রত্যাখান করেছিল ; তখন কেমন হয়েছিল আমার অসন্তোস )          
                     18. Those before them had also denied. And how was My punishment then!

            وَلَمْ يَرَوْا إِلَى الطَّيْرِ فَوْقَهُمْ صَافَّاتٍ وَيَقْبِضْنَ ۚ مَا يُمْسِكُهُنَّ إِلَّا الرَّحْمَـٰنُ ۚ إِنَّهُ بِكُلِّ شَيْءٍ بَصِيرٌ ﴿١٩
         ( তারা কি দেখেনি তাদের উপরে পাখিদের ছড়ানো ও গুটানো? তাদের পরম করুণাময় ছাড়া কেউ  ধরে রাখেন না নিঃসন্দেহে  তিনিই সর্ববিষয়ে সম্যক দ্রস্টা )
      19. Do they not see the birds above them flying wings spread out or folded? Nothing holds them aloft but God. All things are within his purview.
        
             أَمَّنْ هَـٰذَا الَّذِي هُوَ جُندٌ لَّكُمْ يَنصُرُكُم مِّن دُونِ الرَّحْمَـٰنِ ۚ إِنِ الْكَافِرُونَ إِلَّا فِي غُرُورٍ ﴿٢٠
   (আচ্ছা, পরম করুণাময় কে বাদ দিয়ে কে সেইটি --- যে হবে তোমাদের জন্য সেনাবাহিনী যে তোমাদের সাহায্য করবে ? অবিশ্বাসীরা তো বিভ্রান্তীতে থাকা ছাড়া আর কোথাও নয় )
   20. What other army do you have to help you apart from Ar-Rahman? The unbelievers are surely    lost in delusion.

               أَمَّنْ هَـٰذَا الَّذِي يَرْزُقُكُمْ إِنْ أَمْسَكَ رِزْقَهُ ۚ بَل لَّجُّوا فِي عُتُوٍّ وَنُفُورٍ ﴿٢١
  ( অথবা কে সে যে তোমাদের জীবিকা দেবে যদি তিনি তার রিযিক বন্ধ করে দেন ? বস্তুত তারা    
      অবাধ্যতায় বিতৃষ্ণায় অনড় রয়েছে )
   21. Who is there to give you food in case He withholds His bounty? Yet they persist in rebellion and aversion.

            
              أَفَمَن يَمْشِي مُكِبًّا عَلَىٰ وَجْهِهِ أَهْدَىٰ أَمَّن يَمْشِي سَوِيًّا عَلَىٰ صِرَاطٍ مُّسْتَقِيمٍ ﴿٢٢﴾ 
       (আচ্ছা যে তার মুখের উপরে থুবড়ে থুবড়ে চলে সে কি তবে বেশী সৎ পথে চালিত , না  সেই জন যে
       সোজা হয়ে চলে শুদ্ধ সঠিক  পথে ?)  
       22. Will he find the way who grovels flat on his face, or he who walks straight on the right path?
  
              قُلْ هُوَ الَّذِي أَنشَأَكُمْ وَجَعَلَ لَكُمُ السَّمْعَ وَالْأَبْصَارَ وَالْأَفْئِدَةَ ۖ قَلِيلًا مَّا تَشْكُرُونَ ﴿٢٣
    ( বলো --  “ তিনিই সেইজন যিনি তোমাদের বিকাশিত করেছেন আর তোমাদের জন্য বানিয়ে দিয়েছেন   
       শ্রবনশক্তি, দৃষ্টিশক্তি ও অন্তঃকরণ। তোমরা যা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কর সে  টা তো যৎসামান্য”)  
     23. Say: "It is He who raised you and gave you ears and eyes and hearts. How little are the thanks you offer!"

             قُلْ هُوَ الَّذِي ذَرَأَكُمْ فِي الْأَرْضِ وَإِلَيْهِ تُحْشَرُونَ﴿٢٤
   ( তুমি বলে যাও --  “তিনিই সেইজন যিনি পৃথিবীতে তোমাদের ছড়িয়ে দিয়েছেন , আর তারই কাছে
     তোমাদের একত্রিত করা হবে )       
     24. Say: "It is He who dispersed you all over the earth, and to Him you will be gathered."        
                       وَيَقُولُونَ مَتَىٰ هَـٰذَا الْوَعْدُ إِن كُنتُمْ صَادِقِينَ ﴿٢٥
        ( আর তারা বলে –  “কখন  এই ওয়াদা হবে ? যদি তোমরা সত্যবাদী হও”)  
       25. But they say: "When will this promise come to pass, if what you say is true?"

                       قُلْ إِنَّمَا الْعِلْمُ عِندَ اللَّـهِ وَإِنَّمَا أَنَا نَذِيرٌ مُّبِينٌ ﴿٢٦
      (তুমি বলো – জ্ঞান কেবলই আল্লাহের কাছে আছে ; আর আমি নিঃসন্দেহে একজন স্পষ্ট সতর্কবাণী মাত্র )
        26. Say: "God alone has knowledge. My duty is only to warn you clearly."  
        
      فَلَمَّا رَأَوْهُ زُلْفَةً سِيئَتْ وُجُوهُ الَّذِينَ كَفَرُوا وَقِيلَ هَـٰذَا الَّذِي كُنتُم بِهِ تَدَّعُونَ ﴿٢٧
    ( তারপর তারা যখন এটি আসন্ন দেখতে পাবে তখন যারা অবিশ্বাস করেছিল তাদের চেহারা হবে মলিন,     
     আর বলা হবে – “এটিই তাই যা তোমরা ডেকে আনছিলে )
    27. When they realise it has come upon them, distraught will be the faces of unbelievers. They

          will be told: "This is what you asked for."

        
            لْ أَرَأَيْتُمْ إِنْ أَهْلَكَنِيَ اللَّـهُ وَمَن مَّعِيَ أَوْ رَحِمَنَا فَمَن يُجِيرُ الْكَافِرِينَ مِنْ عَذَابٍ أَلِيمٍ ﴿٢٨
    (তুমি বলো – “তোমরা কি ভেবে দেখেছো --- যদি আল্লাহ্‌ আমাকে আর যারা আম্র সঙ্গে রয়েছে তাদের ধ্বংস
      করেন অথবা আমাদের প্রতি করুণা করেন; কিন্তু কে অবিশ্বাসীদের রক্ষা করবে  মর্মন্তদ শাস্তি থেকে ?)
      28. Say: "Just think: If God destroys me and those with me, or is benevolent to us, who will then    
            protect the unbelievers from a painful doom?“

           لْ هُوَ الرَّحْمَـٰنُ آمَنَّا بِهِ وَعَلَيْهِ تَوَكَّلْنَا ۖ فَسَتَعْلَمُونَ مَنْ هُوَ فِي ضَلَالٍ مُّبِينٍ ﴿٢٩
   ( বলো – “তিনি ই পরম করুণাময়, আমরা তাতে ঈমান এনেছি এবং তারই উপরে আমরা  আস্থা রেখেছি;
      সুতারাং অচিরেই তোমরা জানতে পারবে কে সেইজন যে স্পষ্ট বিভ্রান্তীতে রয়েছে )
    29. Say: "He is the benevolent; in Him do we believe, and in Him do we place our trust. You will
          now realise who is in manifest error.“

           قُلْ أَرَأَيْتُمْ إِنْ أَصْبَحَ مَاؤُكُمْ غَوْرًا فَمَن يَأْتِيكُم بِمَاءٍ مَّعِينٍ ﴿٣٠
(বলে যাও – “তোমরা কি ভেবে দেখেছো – যদি তোমাদের পানি সাত-সকালে ভূগর্ভে চলে যায়, তাহলে কে তোমাদের জন্য নিয়ে আসবে প্রবাহমান পানি”)
    30. Say: "Just think: If your water were to dry up in the morning who will bring you water from a  
           fresh, flowing stream?"
     
           

No comments

Powered by Blogger.